fbpx

ফাউসির চোখে ‘আশার আলো’ করোনা নিয়ন্ত্রণে

আগামী মার্চ-এপ্রিলের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন দেশটির শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউসি।

তিনি বলেছেন, ‘যদি আমরা আরও বড় পরিসরে টিকাদান কার্যক্রম চালাতে পারি এবং রাষ্ট্রের বেশিরভাগ মানুষকে টিকার আওতায় আনতে পারি, তবে আমি বিশ্বাস করি— ২০২২ সালের বসন্তের (মার্চ-এপ্রিল-মে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বসন্ত ঋতু) মধ্যেই আমরা করোনা পরিস্থিতির ওপর ভালো নিয়ন্ত্রণ নিতে পারবো।’

যুক্তরাষ্ট্রে করোনার টিকার পূর্ণাঙ্গ অনুমোদন দেওয়া হলে এবং এখনো বাকি থাকা আট থেকে নয় কোটি নাগরিককে দ্রুত টিকা দিতে পারলে মহামারি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব বলেও মত দেন হোয়াইট হাউসের প্রধান স্বাস্থ্য উপদেষ্টা।

যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ কর্তৃপক্ষ (এফডিএ) ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি করোনার টিকা পূর্ণাঙ্গ অনুমোদন দেয়ার একদিন পরই মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) টেলিভিশনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে—ফাইজারের টিকা পূর্ণাঙ্গ অনুমোদন পাওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রে এখন আরও দ্রুত বেশি সংখ্যক মানুষকে টিকার আওতায় আনার সুযোগ হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে- মডার্না ও জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকাও শিগগিরই পূর্ণাঙ্গ অনুমোদন পাবে। হয়তো সেপ্টেম্বরেই মিলবে শিশুদের টিকা দেওয়ার অনুমতিও।

এদিকে, এনবিসি নিউজের ‘টুডে’ অনুষ্ঠানে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে অ্যান্থনি ফাউসি বলেছেন, ‘এখনো আট থেকে নয় কোটি মানুষ টিকার বাইরে রয়েছেন। যাদের অনেকেই টিকা নিতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না, অনেকে আবার নিতে চাইলেও সুযোগ পাচ্ছে না। এ বিশাল সংখ্যক মানুষকে যদি আমরা টিকার আওতায় আনতে পারি, তবে আমার বিশ্বাস পরিস্থিতি বদলে যাবে।’

 

Facebook Comments