fbpx

লকডাউন শিথিলের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার সুপারিশ জাতীয় কমিটির

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর ঊর্ধ্বগতির মধ্যেই সরকার কঠোর লকডাউন শিথিল করায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। কমিটি বলছে, বিধিনিষেধ আরও ১-২ সপ্তাহ চলমান রাখতে পারলে পুরোপুরি সুফল পাওয়া যেত।

বৃহস্পতিবার (১২ আগস্ট) কমিটির ৪৪তম অনলাইন সভা শেষে এই সুপারিশ জানানো হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লা। শুক্রবার (১৩ আগস্ট) গণমাধ্যমে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্বাস্থ্যবিধি শিথিল করার বিষয়ে সরকার তাড়াহুড়ো করেছে। যে কারণে সংক্রমণ আবারও বাড়তে পারে। সরকারের নেয়া সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার আহ্বান জানিয়েছে কমিটি।

এতে বলা হয়েছে, ২৩ জুলাই থেকে ১০ আগস্টের বিধিনিষেধ কঠোরভাবে পালিত না হলেও জনসমাবেশ হওয়ার মতো বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ স্থান বন্ধ থাকায় সংক্রমণ হারে উন্নতি পরিলক্ষিত হয়। তবে সংক্রমণ এবং মৃত্যুর হার কোনোটাই স্বস্তিদায়ক অবস্থায় আসেনি। এ অবস্থায় সরকারের দ্রুত বিধিনিষেধ শিথিল করার/তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্তে সভা উদ্বেগ প্রকাশ করে।

জীবিকা ও দেশে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড সচল রাখার সরকারের দায়িত্ব স্বীকার করলেও কমিটি মনে করে, বিধিনিষেধ শিথিল করার ক্ষেত্রে সরকার তাড়াহুড়ো করছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘এর ফলে সংক্রমণ আবার বৃদ্ধি পাওয়ার আশংকা বাড়তে পারে, তাতে অর্থনীতি আরও বেশি হুমকির মুখে পড়বে।’ অন্তত সভা-সমাবেশ, সামাজিক অনুষ্ঠান, পর্যটন-বিনোদন কেন্দ্র, কমিউনিটি সেন্টার ইত্যাদি আরও কিছুদিন বন্ধ রাখার সুপারিশ করেছে জাতীয় কমিটি।

 

Facebook Comments