fbpx

আজ থেকে গণপরিবহনে ‘পূর্বের ভাড়ায় যত সিট তত যাত্রী’, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

করোনাকালীন বিশেষ নিয়ম বদলে পুরোনো রুটিনে ফিরেছে গণপরিবহন। বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) ঘোষিত ‘পূর্বের ভাড়ায় যত সিট তত যাত্রী’ কার্যকর হচ্ছে মঙ্গলবার সকাল থেকে। রাজধানীতে দেখা গেছে আগের ভাড়ায় যাত্রী ‍তুলছে পরিবহনগুলো, নেই এক সিট ফাঁকা রাখার বাধ্যবাধকতা।

কয়েক দিন আগে গণপরিবহন আগের ভাড়ায় ফিরে যাবে বলে জানান সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তবে মাস্ক পরা, যত আসন তার বেশি যাত্রী না নেওয়াসহ কয়েকটি শর্ত বেঁধে দেওয়া হয়। তবে এর মধ্যে পূর্বের ভাড়ায় ফিরে যাওয়ায় যাত্রীদের যেমন কোনো অভিযোগ ছিল না, তেমনি চালক, হেল্পার কিংবা যাত্রী কারও মাঝেই ছিল না স্বাস্থ্য বিধি মানার কোনো বালাই। মাস্ক, সামাজিক দূরত্ব, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহারেরও ছিল না কোনো বালাই। যে যার মত অবাধে যাতায়াত করছে।

এ দিকে বিআরটিএ প্রচারিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আসনসংখ্যার অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করা যাবে না। গণপরিবহনের যাত্রী, চালক, সুপারভাইজার, হেলপার ও টিকিট বিক্রেতাকে মাস্ক পরতে হবে। হাত পরিষ্কারের জন্য সাবান বা হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখতে হবে।

এ ছাড়া যানবাহন, যাত্রীদের হাতব্যাগ ও মালামাল জীবাণুমুক্ত করতে বাস মালিকদের ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। এ ছাড়া স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত অন্যান্য প্রয়োজনীয় বিধি মেনে চলতে বলা হয়েছে।  করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এখনো নিয়ন্ত্রণে না আসায় গণপরিবহন আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নিলে বড় ধরনের স্বাস্থ্য ঝুঁকির আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে দেশে গত পয়লা জুন থেকে এক সিট ফাঁকা রেখে যাত্রী নেওয়া এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দিয়েছিল সরকার। এ কারণে বাসের ভাড়াও ৬০% বাড়ানো হয়। শুরুর দিকে বাসের কর্মচারীরা এসব স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললেও দুই সপ্তাহ যেতে না যেতে অনিয়মের অভিযোগ উঠে।

মূলত দ্বিগুণ ভাড়া নেওয়া সত্ত্বেও বাস মালিকেরা স্বাস্থ্যবিধিও তোয়াক্কা না করায় যাত্রী অধিকার সংগঠনগুলো সম্প্রতি বাসের ভাড়া আগের অবস্থায় ফিরিয়ে নেওয়ার দাবি জানায়। তারই প্রেক্ষিতে ২৯ আগস্ট সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের পয়লা সেপ্টেম্বর থেকে গণপরিবহন আগের ভাড়ায় চলবে বলে ঘোষণা দেন।

Facebook Comments